মনের আশা পূরণ হলো: আনুশকার

মাত্র ২৫ বছর বয়সেই অভিনেত্রী আনুশকা শর্মা নাম লেখালেন প্রযোজনায়। শুরু করলেন ‘এনএইচ১০’ দিয়ে। সঙ্গী বড় ভাই কর্ণেশ শর্মা। এই দুজনে মিলে এরপর বানালেন ‘পরি’, ‘পিল্লৌরি’ ও সর্বশেষ ‘বুলবুল’।

এর আগে ‘পাতাললোক’ নামে আনুশকার ওয়েব সিরিজও বেশ হইচই ফেলে দিয়েছে। ‘পাতাললোক’কে অনেকে ভারতের সেরা বা অন্যতম সেরা ওয়েব সিরিজ হিসেবেও আখ্যায়িত করেছেন।

এই সিরিজের সফলতার পর আনুশকা এখন ‘বুলবুল’–এর সফলতা উপভোগ করছেন। অনলাইনে ‘বুলবুল’–এর সফলতা উদ্‌যাপন করতে একটা ‘সাকসেস পার্টি’ও দিয়েছেন ৩২ বছর বয়সী আনুশকা।

পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়সহ এই ছবির সঙ্গে যুক্ত ২০ জন অভিনয়শিল্পী ও কলাকুশলী যোগ দিয়েছেন সেই অনলাইন আড্ডায়।

‘পরি’র অভিনয়শিল্পী ও টলিউড তারকা ঋতাভরী চক্রবর্তী এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে যখন আনুশকা ইতালিতে বিয়ে করতে গিয়েছিলেন তখন ‘পরি’ সিনেমার শুটিং চলছিল।

যখন আনুশকা নিজে বিয়ের মেকআপ নিচ্ছিলেন, তখনো নাকি তিনি ভিডিও কলে শুটিং ইউনিটের খোঁজখবর নিয়েছেন। সবার সুবিধা–অসুবিধা জেনেছেন।

চরিত্রের লুক ঠিক আছে কি না, দেখেছেন। নিজের অভিনয় নিয়ে আনুশকা যতটা সিরিয়াস, প্রযোজনা নিয়েও ততটাই। নিজের প্রযোজনা নিয়ে আনুশকা ডেকান ক্রনিকলকে বলেন, ‘কেউ কেউ আমার প্রযোজিত ছবিগুলোর ভেতরে কোথাও একটা মিল খুঁজে পাচ্ছেন।

নারীপ্রধান, ভৌতিক, যে যা-ই বলুন না কেন, এটা কিন্তু উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে হয়নি। তবে হ্যাঁ, আমি সব সময় নারীর শক্তি আর ভিন্ন রকম গল্পগুলোকে উদ্‌যাপন করতে চেয়েছি।

বলিউডের ছবিতে প্রায় সব সময়ই নারী চরিত্রগুলো সত্যিকারের নারীদের চেয়ে বিচ্যুত, অসম্পূর্ণ ও ভারসাম্যহীন। আমি তাই অভিনয় থেকে প্রযোজনায় এসে বড় পর্দার নারী চরিত্রগুলো কিছুটা হলেও সংশোধন করতে চাই। নারীদের শক্তি, ক্ষমতা আর সংগ্রামের কথা বলতে চাই।’

আনুশকা জানান, তিনি আর তাঁর ভাই এমন সব নারী চরিত্র নির্মাণ করতে চান, যেগুলো বলিউডের বড় পর্দার নারী চরিত্রের তথাকথিত সংস্কৃতিকে ভেঙে নতুন করে গড়বে। আনুশকা বলেন, ‘আমি বা কর্ণেশ, আমরা কেউ পেশাদার প্রযোজক নই।

তাই আমরা এমনভাবে শুরু করেছিলাম, যেখানে আমাদের হারানোর কিছু ছিল না। আমি অভিনয়শিল্পী হিসেবে যেই চরিত্রগুলো খুঁজেছি, সেগুলোকেই প্রযোজক হিসেবে বাস্তবায়ন করতে চেয়েছি।

আমাদের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ক্লিন স্লেট ফিল্মস নতুন পরিচালক, চিত্রনাট্যকার, অভিনয়শিল্পী, সংগীতশিল্পী আর সংগীত পরিচালকদের নিয়ে কাজ করে, যারা অন্য রকম কিছু করতে চায়।

আমরা পুরো দলের পক্ষ থেকে “পাতাললোক” আর “বুলবুল”–এর দর্শকদের আরও একবার ধন্যবাদ আর কৃতজ্ঞতা জানাই।’

Related Post