রাজধানীতে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা আবার বেড়েছে।

রাজধানীতে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা আবার বেড়েছে। তবে ঢাকার বাইরে নতুন রোগী ভর্তির সংখ্যা কমে এসেছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমারজেন্সি অপারেশন সেন্টার অ্যান্ড কন্ট্রোল রুমের তথ্য অনুযায়ী, মঙ্গলবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ৬১৫ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন। এর মধ্যে ঢাকায় ১৯৮ জন এবং ঢাকার বাহিরে ৪১৭ জন। নতুন করে আক্রন্ত রোগীর সংখ্যা ৬ শতাংশ কমেছে।

এর আগে সোমবারের প্রতিবেদনে ঢাকার হাসপাতালগুলোতে ১৯৩ জন নতুন রোগী ভর্তি হন, রবিবার পর্যন্ত ভর্তি হয়েছিলেন ১৬৩ জন।

এদিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে তারিন (১১) নামে এক পঞ্চম শ্রেণির স্কুলছাত্রীর মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার বিকাল পৌনে তিনটায় আইসিইউতে চিকিত্সাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। মৃতার ফুপি শাহিদা আক্তার জানান, গত মাসের শেষের দিকে সে জ্বরে আক্রান্ত হয়। পরে স্থানীয় হাসপাতালে চিকিত্সা দেওয়া হয়। ১২ সেপ্টেম্বর ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মৃত তারিন শরীয়তপুর জেলার গোসাইরহাট থানার পূর্ব মাছুয়াখালী গ্রামের নাসির তালুকদারের মেয়ে।

এদিকে চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফেরা ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। এ পর্যন্ত চিকিত্সা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৭৯ হাজার ৭৬৬ জন ডেঙ্গু রোগী। চলতি বছরের শুরু থেকে গতকাল মঙ্গলবার পর্যন্ত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন ৮২ হাজার ৪৫৪ জন। আর চিকিত্সা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৭৯ হাজার ৭৬৬ জন। এ পর্যন্ত ৯৭ শতাংশ মানুষ চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছে। সারাদেশে বর্তমানে মোট ভর্তি রোগীর সংখ্যা ২ হাজার ৪৮৫ জন।

এর মধ্যে ঢাকায় ৯৯৩ জন এবং ঢাকার বাহিরে ১ হাজার ৪৯২ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে ছাড়প্রাপ্ত মোট রোগীর সংখ্যা ৬৩৭ জন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ৪৬, মিটফোর্ড হাসপাতালে ৪৪, ঢাকা শিশু হাসপাতালে ৬, শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে ২১, বিএসএমএমইউতে ৮, পুলিশ হাসপাতাল রাজারবাগে ৩, মুগদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ১৬, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ৭, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ১১ এবং কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে ১ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন।

ঢাকা বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালে (ঢাকা শহর ব্যতীত) ৯৩ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ৪৮ জন, খুলনা বিভাগে ১৫৭ জন, রংপুর বিভাগে ৮ জন, রাজশাহী বিভাগে ৩৫ জন, বরিশাল বিভাগে ৬৩ জন, সিলেট বিভাগে ৩ জন ও ময়মনসিংহ বিভাগে ১০ জন ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগী ভর্তি হন।

Related Post