কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা তুলে নেয়ায় একের পর এক প্রতিবাদ

কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা তুলে নেয়ায় একের পর এক প্রতিবাদ ও তা নিয়ে আন্তর্জাতিক মহলের কাছে দৌড়ঝাঁপ করে যাচ্ছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তবে চীনে প্রায় ২০ লাখ উইঘুর মুসলিমদের নির্যাতনের ব্যাপারে একেবারে নিশ্চুপ তিনি।

গত মার্চে ফিন্যান্সিয়াল টাইমসকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ইমরান খান বলেন, ‘উইঘুর মুসলিমদের নির্যাতনের ব্যাপারে তিনি বেশি কিছু জানেন না।’

তিনি বলেন, ‘সত্যি কথা আমি ওই সম্পর্কে তেমন কিছুই জানি না।’

বিশ্বে মুসলিম সম্প্রদায় অনেক খারাপ সময়ের মধ্যে যাচ্ছে বলে উল্লেখ করেন ইমরান খান। কিন্তু সেসময় তিনি চীনে উইঘুর মুসলিমদের ওপর যে নির্যাতন চালানো হচ্ছে বিষয়টি এড়িয়ে যান।

সাক্ষাৎকারে ইমরান খান আরো বলেন, ‘ব্যাপারটি সম্পর্কে আমার যথেষ্ট জানা থাকলে আমি এ ব্যাপারে কথা বলতাম। এছাড়া চীনে মুসলিমদের ওপর যে নির্যাতন চালানো হচ্ছে সে বিষয়ে সংবাদ মাধ্যমে বেশি কোন খবর নেই বলে উল্লেখ করেন তিনি।’

সংখ্যালঘু উইঘুর মুসলিম সম্প্রদায়ের ২০ লাখেরও বেশি মানুষকে এক ধরনের বন্দীশিবিরে আটকে রেখেছে চীন। দেশটি মুসলিমদের ওপর গত কয়েক বছর ধরে নানা অত্যাচার করছে বলে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়, মিডিয়া ও পশ্চিমা অনেক দেশ অভিযোগ তুলেছে।

গত বছর জাতিসংঘ জানায়, মুসলিম গোষ্ঠী উইঘুরের ১০ লাখ মানুষকে আটক রেখেছে চীন।

চীনের অন্যতম বন্ধু রাষ্ট্র হিসেবে পরিচিত পাকিস্তান। পাকিস্তান চীন থেকে বিপুল পরিমাণে অর্থ সহযোগিতা নিয়ে আসছে। এছাড়া কাশ্মীর ইস্যুতে চীন পাকিস্তানের পাশে থাকবে বলে ইতিমধ্যে জানিয়ে দিয়েছে। তথ্য সূত্র: ফার্স্ট পোস্ট, ফিন্যান্সিয়াল টাইমস।

Related Post